অনলাইনে ইনকামের চৌদ্দগুষ্টি এর দশম পর্ব

আসসালামু আলাইকুম,
আশা করি সবাই ভাল আছেন, 😊
নানান ব্যস্ততার কারণে আর ঈদের ঝামেলার কারণে অনেকদিন লেখা হয়ে উঠেনি ।😒

তাই আজ আপনাদেরকে জ্বালাতে আমি আবার হাজির অনলাইনে ইনকামের চৌদ্দগুষ্টি এর দশম পর্ব নিয়ে। আজ আপনাদেরকে বলব আপওয়ার্ক এ কিভাবে বীড করতে হয়।😎

যারা আগের পর্বগুলো পড়েন নি তাদেরকে বলব আগের লেখাগুলো পড়ে নিতে তাহলে ব্যাপার গুলো অনেক সহজ মনে হবে।

এই দশম সংখ্যা টা নিয়ে কিন্তু অনেক মজার মজার ব্যাপার আছে, রোমানরা এই 10 কে ইংরেজি এক্স এর মত লেখে অর্থাৎ দুটো v একে অপরের প্রতিবিম্ব হিসেবে দেখা যায়,

সংখ্যা জাদুকর পিথাগোরাস বলতেন 10 হচ্ছে পৃথিবীর সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটি সংখ্যা, কেন?🤔

আপনি যদি 1 2 3 এবং 4 এই 4 টি সংখ্যাকে যোগ দেন তার ফলাফল হয় 10,
এখানে এক দিয়ে অস্তিত্ব, দুই দিয়ে সৃষ্টি, তিন দিয়ে জীবন এবং 4 দিয়ে পৃথিবীর চারটি মূল উপাদান অর্থাৎ মাটি বায়ু জল ও আগুন কে বোঝানো হয়েছে। 😮

এটা কি জানেন পৃথিবীর 10 শতাংশ মানুষ বাঁহাতি?🤔
অনেক হলো অংকের কথা এবার আসুন আমাদের মূল বিষয় নিয়ে কথা বলি।

আপওয়ার্ক এ যখন ক্লায়েন্ট তার কাজের বর্ণনা দিয়ে তার জব টি পোস্ট করবেন, তখন আপনি সেই জব পোস্ট কি দেখে যদি মনে করেন আপনি সে কাজটি করতে পারবেন তাহলে আপনি সেই কাজের উপর ভিত্তি করে আপনি ক্লায়েন্ট কে একটি প্রস্তাব পাঠাতে পারবেন।

আর এই প্রস্তাবনা পাঠানোর জন্য আপনাকে একটি কভার লেটার লিখতে হবে, এই কভার লেটারটি হচ্ছে এমন একটি জিনিস যার মাধ্যমে আপনি আপনার ক্লায়েন্টের মনোযোগ আকর্ষণ করবেন এবং কাজ গুলো কিভাবে করবেন সে সম্বন্ধে বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে যদি তাকে বোঝাতে পারেন বা তাকে আপনার সাথে কাজ করাতে রাজি করাতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনি কাজটি পেয়ে যাচ্ছেন।😍

বোঝাই যাচ্ছে যে এই কভার লেটার জিনিসটা অনেক ইম্পরট্যান্ট, কভার লেটার লেখার জন্য আসলে অনেক ধরনের পদ্ধতি ব্যবহার করে পেশাগত ফ্রিল্যান্সাররা।

আমার একটি পদ্ধতি বেশ ভালো লাগে এই পদ্ধতিটি ব্যবহার করে আমি অনেকবার বিড করেছি কয়েকবার কাজ ও পেয়েছি।😎

ব্যাপারটা খুব সহজ আপনি তিনটি প্রশ্ন করবেন সে তিনটি প্রশ্ন হচ্ছে কি,কেন,কিভাবে?
অর্থাৎ ক্লায়েন্ট এই জব টি পোস্ট করেছেন সেই কাজ কি আসলে কি, আপনি কাজটি কেন করবেন এবং সর্বশেষ আপনি কাজটি কিভাবে করবেন।

এই তিনটি জিনিস আপনি ক্লায়েন্টকে বুঝিয়ে ভেঙে বলতে পারেন, তাহলে কাজ পাওয়ার একটি সম্ভাবনা সৃষ্টি হতে পারে।

একটি সাজানো গোছানো সুন্দর পোর্টফলিও কিন্তু আপনাকে অনেক সাহায্য করবে কাজ এর ক্ষেত্রে।

অনেকেই প্রশ্ন করেন যে ভাই কাজ পাব কিভাবে?

উত্তরটা খুবই সহজঃ কাজ পাওয়ার জন্য আপনার সর্বপ্রথম যে জিনিসটি প্রয়োজন সেটি হচ্ছে দক্ষতা, যা কিনা 90 ভাগ ভূমিকা পালন করবে আপনাকে কাজ এনে দিতে,👌

আর বাকি 10 ভাগ হচ্ছে আপনার প্রেজেন্টেশনের- আপনি আপনাকে সামনের ব্যক্তির সামনে কীভাবে উপস্থাপনা করবেন, আপনার কাজের দক্ষতা গুলোকে তার সামনে ফুটিয়ে তুলবেন এবং আপনাকে কেন হায়ার করবে তার কাজটি করার জন্য।🤔

এই গুলো যদি তাকে বুঝিয়ে বলতে পারেন তাহলে সফলতা খুব একটা দূরে নয়।😍

কাজ পাওয়া মোটেও কোনও ম্যাজিক নয় যে আমি আপনাকে একদিনে শিখিয়ে দিব,

সবগুলো জিনিসের কম্বিনেশন যখন সঠিকভাবে হয় তখনই আপনি কাজ পেতে পারেন, আপনি কখনো বলতে পারবেন না যে এটা করলে কাজ পাবই, সবগুলোই হচ্ছে একটি আনুমানিক সম্ভাবনা ।🤞
আপওয়ার্ক এ নতুন আপডেট আসার কারণে অনেক সিস্টেমে পরিবর্তন হয়েছে এখন আপনি আর মনগড়াভাবে যাকে তাকে যখন তখন বীড করতে পারবেন না।

আমি মনে করি জিনিসটা খুবই ভাল হয়েছে, এখন আর একাউন্ট ক্রিয়েট করে আজেবাজে ভাবে বিট করে বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সারদের বদনাম আর বাড়বে না।😢

এবার আমি খুব ব্যক্তিগত অভিমত আপনাদেরকে বলছি ।

*আপনি আগে কাজ শিখুন, অন্তত পক্ষে চার পাঁচটি প্রজেক্টে কাজ করার অভিজ্ঞতা অর্জন করুন।

*কাজ করতে গিয়ে আপনি নতুন কি কি শিখলেন নতুন কি কি বুঝলেন এবং যা বুঝলেন না তা খুঁজে বের করুন।

*যে কাজটি করছেন সে কাজটি প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করুন, ঠিক যেভাবে আপনার গার্লফ্রেন্ড থাকলে তাকে ভালবাসতেন, কাজ কে ঠিক সেভাবে ভালবাসুন।

*খুব সুন্দর করে সাজিয়ে-গুছিয়ে একটি পোর্টফোলিও বানান সেখানে আপনার পূর্ববর্তী কাজের অভিজ্ঞতা কাজ করতে গিয়ে নানান জানা অজানা তথ্য এবং এই কাজের প্রতি আপনার ব্যক্তিগত অভিমত গুলো ফুটিয়ে তুলুন। 👌

একটি সুন্দরপোর্টফোলিও একটি বিশাল ভূমিকা রাখে আপনাকে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে তুলতে।🔥🔥

( আগামী পর্বে কিভাবে পোর্টফলিও ক্রিয়েট করবেন, সেটা সম্বন্ধে আলোচনা করব ইনশা আল্লাহ)

একটা কাজ কখনোই করবেন না, সেটা হচ্ছে ওভার কমিটমেন্ট করা।
কাজে বিড করার আগে কাজ বুঝুন শুনুন প্রয়োজনে আর একটু রিসার্চ করে নিন মনে রাখবেন একটি খারাপ রিভিউ আপনার আইডিটি কে অনেক দুর্বল করতে পারবে। 😢

আপওয়ার্ক এর একটি মজার তথ্য না দিলেই হচ্ছে না, আপন কে ম্যাক্সিমাম কাজ পাওয়া যায় সকাল সাতটা থেকে নয়টার মাঝে। 😊

এটা কিন্তু আমার একার কথা নয়, আমার চেনা জানা যারা এই ভাবে কাজ করছে তাদের সবার মতামত এটা।😉

আজ অনেক কথা বলে ফেললাম অনেকদিন পর লিখতে বসেছি কেন যেন লিখা বের হচ্ছে না।

আজ আর লিখব না ইনশাআল্লাহ আগামীকাল আসবো আপনাদেরকে যন্ত্রণা দিতে, সেই পর্যন্ত সবাই সুস্থ থাকবেন ভালো থাকবেন.
যেকোনো প্রশ্ন বা তথ্যের জন্য আমাকে নক করুন,
আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব আপনাদের কে সাহায্য করার জন্য।
সে পর্যন্ত পাশে থাকবেন সঙ্গে থাকবেন,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here