অনলাইনে ইনকামের চৌদ্দগুষ্টির ষষ্ঠ পর্ব

আসসালামু আলাইকুম,

এসে পড়লাম অনলাইনে ইনকামের চৌদ্দগুষ্টির ষষ্ঠ পর্ব নিয়ে,
শরীর যতই খারাপ হোক, আপনাদের কে জ্বালা-যন্ত্রণা না দিলে কি থাকতে পারি?😉😉

আজকে আপনাদেরকে বলবো ফাইবারের লেভেল এবং বিড করার কিছু পদ্ধতি নিয়ে,

যারা নতুন এই লেখাটি পড়ছেন আগের লেখাগুলো পড়ে নি তাদেরকে বলব আগে লেখাগুলো পড়ে নিন তাহলে আপনি খুব সহজেই সম্পূর্ণ ব্যাপারটা বুঝতে পারবেন।

ফাইবারে কাজ পাওয়ার জন্য সাধারনত কাস্টমার ই অর্থাৎ বায়ার নিজেই আপনাকে আপনার সার্ভিস হতে যেকোনো একটি সার্ভিস সিলেক্ট করে অর্ডার দিতে পারেন।

অর্থাৎ বায়ার আপনার সাথে কথা না বলেও আপনাকে অর্ডার প্লেস করতে পারে,
এখন কথা হচ্ছে বায়ার আপনাকে কিভাবে কখন কেন কাজ দিবে?

সাধারণত টপ লেভেলের ছাড়া বা আর কখনোই কাজ দিয়ে যায় না।
টপ লেভেল ওটা আবার কি?🤷‍♀️

আপনি যখন ফাইবারে একাউন্ট ক্রিয়েট করবেন ওখান থেকেই আপনি দুই টি মুডসুইচ করতে পারেন, 😱
একটি হচ্ছে সেলিং আরেকটি হচ্ছে বায়িং, অর্থাৎ আপনি ইচ্ছা করলেই একটি অ্যাকাউন্ট থেকে বায়ার এবং সেলার দুটি কাজই করতে পারেন।😁

অন্যান্য প্ল্যাটফর্ম গুলোর মত এখানে ক্রেতা এবং বিক্রেতার জন্য, অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সার এবং ক্লায়েন্টের জন্য আলাদা কোনো অ্যাকাউন্ট নেই।🤗

এটা ছিল একটা অন্যতম কারণ ফাইবারের খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা পাওয়ার,

এবার ফিরে আসছি টপ লেভেল নিয়ে,

আপনি যখন ফাইবারে নির্দিষ্ট পরিমাণ সময় এবং নির্দিষ্ট পরিমাণ প্রজেক্ট শেষ করতে পারবেন সফলতার সহিত তখন ফাইবার আপনাকে একটি লেভেল ব্যাচ দিবে।

ফাইবারে মোট তিন ধরনের লেভেল ব্যাচ আছে, প্রথমত লেভেল ১ সেলার তারপর ও লেভেল 2 এবং সর্বশেষ টপ সেলার।

লেভেল ওয়ান এ আসার জন্য আপনাকে কমসেকম 60 দিন বা 2 মাস কাজ করতে হবে,
কমপক্ষে 10 টি ইন্ডিভিজুয়াল প্রজেক্ট শেষ করতে হবে।
যার সর্বমোট মূল্য 400 ডলার হতে হবে কমপক্ষে 4.7 রেটিং হতে হবে, এবং রিসপন্স রেট- অন টাইম ডেলিভারি- অর্ডার কম্প্লেশন রেট 90 শতাংশ থাকতে হবে।

লেভেল ওয়ান সেলার হলে লাভ কি??🤷‍♀️

সাতটি জায়গায় দশ টি গিগ হয়ে যাবে এখানে,🤑
সাধারণত যেখানে আপনি আপনার গিগ সার্ভিসের তিনটি ডিফারেন্ট প্রাইস এবং সার্ভিস ভ্যালু প্রেজেন্ট করতে পারেন লেভেল ১ সেলার হয়ে যাওয়ার পর আপনি 10 টি ডিফারেন্ট প্রাইস এবং সার্ভিস ভ্যালু অ্যাড করতে পারবেন।😱

এছাড়াও আপনার কি কে আপনি ইচ্ছা করলে চারটি আলাদা আলাদা এক্সট্রা চার্জিং ভ্যালু সেট করতে পারবেন।
অর্থাৎ ফাস্ট ডেলিভারি বা কোন কিছু এক্সট্রা করে দেওয়ার জন্য এক্সট্রা চার্জ,

সহজ ভাষায় বার্গার কেনার পর সস এর জন্য আলাদা তিন টাকা করে রাখা।
বা এক্সট্রা জন্য আলাদা করে পেমেন্ট করা। 🤑🤑

লেভেল টু সেলারঃ

লেভেল 2 সেলার হওয়ার জন্য আপনাকে ঠিক একই রকম ভাবে আপনার কাজের ধরন এবং মান অব্যাহত রাখতে হবে 120 দিন বা 4 মাসের জন্য,

এখানেও আপনার রিভিউ রেটিং 4.7 এর নিচেহওয়া যাবে না , 90% রেসপন্স রেট অর্ডার কমপ্লিশান রেট এবং অনটাইম ডেলিভারি রেট কত হবে।
কমপক্ষে 50 টি প্রজেক্টে কাজ করে 2000 ডলার এর সমপরিমাণ কাজ করতে হবে এই সময়ে,

লেভেল টু সেলার হলে আপনার গিগের সংখ্যা এক লাফে হয়ে যাবে ২০ টি,
আপনার গিগ এক্সট্রা এর সংখ্যা হয়ে যাবে পাঁচটি।

অর্থাৎ আপনি এবার প্রত্যেকটি সেবাকে 15 টি ভিন্ন ধরনের ভিন্ন রূপে ভিন্ন মাত্রা এবং বিভিন্ন দামে বিক্রি করতে পারবেন।😍😍

আরও মজার ব্যাপার হচ্ছে নিউ সেলার বা লেভেল 1 সেলার যেখানে সর্বোচ্চ একটি গিগ থেকে 5000 ডলার এর কাস্টম অফার সেন্ড করতে পারে,
লেভেল 2 সেলার হলে কিন্তু আপনি সেখানে 10 হাজার ডলারের কাস্টম অফার করতে পারবেন।

টপ লেভেল সেলারঃ

টপ লেভেল সেলার হওয়ার জন্য আপনাকে উপরের সবকিছু মেনটেইন করে 6 মাস কাজ করতে হবে এবং আপনাকে অবশ্যই 20 হাজার ডলারের কাজ করতে হবে এই সময়ের মাঝে,মোট 100 টি প্রজেক্ট শেষ করতে হবে তার সাথে।

টপ লেভেলের সেলার হলে আপনার গিগ এর সংখ্যা হয়ে যাবে 30 টি,
আপনি প্রত্যেকটি গিগ থেকে 20 টি ভিন্ন ভিন্ন প্রাইস ভ্যালু সেট করতে পারবেন।

এবং এখানে কি এক্সট্রা হিসেবে থাকছে 6 টি অপশন💖

অন্যান্যদের যখন ফান্ড ক্লিয়ারেন্স ১৪ দিন সময় লাগে top-level দের লাগে শুধু মাত্র 7 দিন,

ভিআইপি কাস্টমার সাপোর্ট এবং 10 হাজার ডলারের কাস্টম অফার করার সুযোগ থাকছে এখানে।

কাস্টমার এলিজিবিলিটি প্রোগ্রাম,লিস্টিং ইন প্রমশন স্টরি অফ ফাইবার, এছাড়া আরো নানা সুযোগ।

কঠোর পরিশ্রম এবং অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে কিন্তু শুধুমাত্র 6 মাসে ,
আপনি হয়ে যেতে পারেন একজন টপ লেভেল সেলার।😎

কি লোভ হচ্ছে?

ছয় মাসের টপ সেলার হওয়ার আগে চিন্তা করুন আপনি কত দিনে দক্ষতা অর্জন করবেন টপ সেলার হওয়ার জন্য, আমি বারবার বলছি আগে দক্ষতা অর্জন করুন বিশ্বাস করুন আপনাকে কাজের পিছনে ছুটতে হবে না কাজ আপনার পিছনে ছুটবে।

শরীরটা খুব একটা ভালো না বেশি লিখতে পারিনা, বেশি লিখতে গেলে গুলিয়ে ফেলি লেখার শুরুতে বলেছিলাম বিড করতে হয় কিভাবে সেটা বলব,

কিন্তু এখন আর লিখতে ইচ্ছা করছে না,
তো কাল ইনশাআল্লাহ আল্লাহ যদি বাঁচায় রাখে, তবে অবশ্যই বিড করার সিস্টেমটা নিয়ে কথা বলবো।
সাথে বোনাস হিসেবে দিব ফাইবারে কোন কোন কাজগুলো কখনোই করবেন না যা করলে আপনার অ্যাকাউন্ট চিরতরে সাসপেন্ড হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here